বাকেরগঞ্জ প্রতিনিধি।। বাংলাদেশে নিযুক্ত সুইজারল্যান্ডের রাষ্ট্রদূত নাথালি চুয়ার্ড বলেছেন, গত ৫০বছর ধরে সুইজারল্যান্ড বাংলদেশকে সহায়তা করে আসছে। আমরা বাংলাদেশে অনেকগুলো প্রজেক্ট নিয়ে কাজ করছি। বৃহস্পতিবার দুপুরে বরিশালের বাকেরগঞ্জ উপজেলার চরামদ্দিতে রাজিয়া স্যানিটারী পরিদর্শন শেষে বাকেরগঞ্জ উপজেলা স্যানিটেশন ব্যাবসায়ী সমবায় সমিতি লিমিটেডের মাসিক সভায় উপস্থিত হয়ে তাদের ভিবিন্ন কার্যক্রম দেখে সন্তোস প্রকাশ করেন। এবং এদশের গ্রামীন জনগোষ্ঠির স্বাস্থ্য সচেতনতা দেখে প্রশংসা করেন।

বৃহস্পতিবার দুপুরে বাংলাদেশে নিযুক্ত সুইজারল্যান্ডের রাষ্ট্রদূত নাথালি চুয়ার্ড এবং ইউনিসেফ বাংলাদেশের প্রতিনিধি শেলডন ইয়েট বরিশাল জেলার বাকেরগঞ্জ উপজেলার চরামদ্দি ইউনিয়নের মিয়াবাড়ি বাজার সংলগ্ন রাজিয়া স্যানিটারি পরিদর্শন করেন এবং বাকেরগঞ্জ উপজেলা স্যানিটেশন ব্যবসায়ি সমবায় সমিতির সাথে মত বিনিময় করেন।

ইউনিসেফ এবং সুইজারল্যান্ড সরকারের অর্থায়নে এবং বাংলাদেশ সরকারের অংশীদারিত্বে স্কেলিং আপ স্যানিটেশন মার্কেট সিস্টেমস্ প্রকল্পটি আইডিই (ইন্টারন্যাশনাল ডেভেলপমেন্ট এন্টারপ্রাইজেস) বাংলাদেশ এর মাধ্যমে ২০১৬ সাল থেকে ২০১৯ সাল পর‌্যন্ত বাস্তবায়িত হয়েছে। এ প্রকল্পের লক্ষ্য ছিল ২০১৯ সালের মধ্যে সত্তর হাজার পরিবারের জন্য উন্নত স্যানিটেশন নিশ্চিত করা। এ প্রকল্পটি তিনটি এপ্রোচের মাধ্যমে বাস্তবায়িত হয়েছে।

(১)উন্নত স্যানিটেশন সেবার চাহিদা ও ব্যবহার বৃদ্ধি করা, (২) সরকারি ও বেসরকারি খাতের সেবাদানকারিদের মাধমে বর্তমান সেবা সরবরাহের উন্নতি করা এবং (৩) ওয়াশ সেক্টরের সাথে জড়িত সরকারি ও বেসরকারি পর্যায়ের প্রতিষ্ঠানগুলিকে শক্তিশালী করার মাধ্যমে একটি সহায়ক পরিবেশ তৈরি করা।

এ পরিদর্শনের উদ্দেশ্য হলো সম্পন্ন হওয়া প্রকল্পের অংশীজন বিশেষ করে স্যানিটেশন কারখানার মালিক এবং তাদের সমবায় সমিতির মাধ্যমে গ্রামীণ পর‌্যায়ে কিভাবে উন্নত স্যানিটেশন নিশ্চিত করছেন তা দেখা। এ পরিদর্শনে রাজিয়া স্যানিটারির মালিক মোসা: রাজিয়া বেগমের সাথে বিস্তারিত কথা বলেন বিশেষ করে তিনি কিভাবে গ্রামীণ পর‌্যায়ে স্যানিটেশন কভারেজ দিচ্ছেন, চাহিদা কিভাবে তৈরি করেন, কাঁচামাল কিভাবে সংগ্রহ করেন, কিভাবে উৎপাদন ও বাজারজাত করেন তা নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করেন।

রাষ্ট্রদূত নাথালি চুয়ার্ড এবং ইউনিসেফ বাংলাদেশের প্রতিনিধি শেলডন ইয়েট রাজিয়া স্যানিটারির উন্নত বিভিন্ন ধরনের ল্যাট্রিন প্রদর্শনী, তৈরি স্যানিটেশন মালামাল, উৎপাদন সেন্টার ঘুরে ঘুরে দেখেন।

এ সময় উপস্থিত গ্রামীণ স্যানিটারি ল্যাট্রিন ক্রেতাগণ তুলে ধরেন উন্নত ল্যাট্রিন ব্যবহার করে তারা কিভাবে রোগমুক্ত ও সুস্থ্য জীবন যাপন করছেন। অতপর তারা বাকেরগঞ্জ উপজেলা স্যানিটেশন ব্যবসায়ি সমবায় সমিতির সাথে মত বিনিময় করেন। এ মত বিনিময়কোলে সমিতির প্রতিনিধিবৃন্দ তুলে ধরেন কিভাবে তারা একত্রিত হয়েছেন এবং কিভাবে তারা প্রকল্প শেষ হওয়ার পরও তাদের কার‌্যক্রম পরিচালনা করছেন। সেইসাথে তারা তাদের ভবিষ্যৎ কর্ম পরিকল্পনা তুলে ধরেন। সমিতির প্রতিনিধিবৃন্দ রাষ্ট্রদূত নাথালি চুয়ার্ড এবং ইউনিসেফ বাংলাদেশের প্রতিনিধি শেলডন ইয়েটকে বলেন যে যুগোপযোগি স্যানিটেশন প্রযুক্তি এবং সেইসাথে সকল স্যানিটেশন ব্যবসায়িদের একই ছাতার তলে আনার জন্য তাদের আরো প্রশিক্ষণের প্রয়োজন।

উক্ত পরিদর্শনে ইউনিসেফ বরিশালের অফিস প্রধান এএইচ তৌফিক আহমেদ, ওয়াশ অফিসার ফোরকান আহমেদ, আইডিই বাংলাদেশের ফিল্ড টিম লিডার মো. নূরুল ইসলাম, বিডি নিউজ পোস্ট এর এডিটর এবং বাংলাটিভির সাংবাদিক এস এম পলাস, চরামদ্দি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মো. সাহাবুদ্দিন খোকন, ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচিত সদস্যবৃন্দ, প্রাইভেট কোম্পানি আরএফএলের প্রতিনিধি, মিডিয়া প্রতিনিধিবৃন্দ প্রমুখ ইপস্থিত ছিলেন।

রাষ্ট্রদূত নাথালি চুয়ার্ড এবং ইউনিসেফ বাংলাদেশের প্রতিনিধি শেলডন ইয়েট এ পরিদর্শনে সন্তুষ্ট প্রকাশ করেন এবং বলেন যে সুইস সরকার স্যানিটেশন খাতে সহযোগিতা করে যাচ্ছেন। তাঁরা স্যানিটেশন খাতের উত্তোরত্তর সফলতা কামনা করেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here